January 28, 2023

Shimanterahban24

Online News Paper

সচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক ব্যবসায় পরিচালনায় অর্থনৈতিক চাকা সচল হবে: পুলিশ সুপার

1 min read

জেলা পুলিশ নেত্রকোণা আয়োজন করেন এক মতবিনিময় সভা। উক্ত সভাটি অনুষ্ঠিত হয় নেত্রকোণা চেম্বার”স অফ কমার্স এর নেত্রীবৃন্দর সাথে। মত বিনিময় সভাটি অনুষ্ঠিত হয় পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে। সভায় সভাপতিত্ব করেন সভাপতিত্ব করেন পুলিশ সুপার মোঃ ফয়েজ আহমেদ।

প্রথমেই পরিচিতি পর্ব শেষে পুলিশ সুপার’র আহবানে জেলার ব্যবসা বাণিজ্য ও ব্যবসা-বাণিজ্য সংশ্লিষ্ট আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক মুক্ত আলোচনা করা হয়। ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ জানান কোভিড ১৯ প্রেক্ষাপট কাটিয়ে না উঠতেই ইউক্রেন- রাশিয়া যুদ্ধে বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দা বিরাজমান।কিছু কিছু ক্ষেত্রে বাংলাদেশেও ইহার প্রভাব বিদ্যমান।

তারা জানান দু-একটি ছোটখাটো বিচ্যুতি ব্যতীত আইন-শৃঙ্খলা সুষ্ঠু স্বাভাবিক থাকায় নেত্রকোনার ব্যবসায়ী সমাজ বৈশ্বিক মন্দা কাটিয়ে সুষ্ঠুভাবে ব্যবসা পরিচালনা করে যাচ্ছে। আরও জানান বাইপাস সড়ক না থাকায় ও ইঞ্জিন চালিত ছোট ছোট অধিক যান চলাচলের কারণে অনেক সময় যানজটের সৃষ্টি হয়।

যানজট নিরসন করা গেলে জনসাধারণের চলাচল নির্বিঘ্ন হবে এবং ব্যবসা-বাণিজ্যে ইতিবাচক প্রভাব পরিলক্ষিত হবে।ব্যবসায়ী সংগঠনের পক্ষ থেকে এ সংক্রান্তে জেলা পুলিশের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।

এ সময় পুলিশ সুপার উপস্থিত সকলকে আশ্বস্ত করেন আইন-শৃঙ্খলা সুষ্ঠু-স্বাভাবিক রাখায় জেলা পুলিশ নেত্রকোণা বদ্ধপরিকর। এরই ধারাবাহিকতায় জেলা শহরের ট্রাফিক যানজট নিরসনে সামর্থ্যের সর্বোচ্চটুকু প্রয়োগ করা হবে।

পুলিশ সুপার বলেন অর্থনীতির চাকাকে সচল রাখার ক্ষেত্রে সম্মানিত ব্যবসায়ীগণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছেন।তিনি বলেন সম্মানিত ব্যবসায়ীগণ যদি স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক ভাবে তাদের ব্যবসা কার্যক্রম পরিচালনা করেন তো বৈশ্বিক মন্দা কাটিয়ে অর্থনৈতিক চাকা সচল রাখা সম্ভব।

আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি নেত্রকোণার ব্যবসায়ী সমাজ এ ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন সহ আইন-শৃঙ্খলা সুষ্ঠু স্বাভাবিক রাখার প্রত্যয়ে নিষ্ঠাবান।

আইন-শৃঙ্খলা সুষ্ঠু স্বাভাবিক রাখার ক্ষেত্রে ব্যবসায়ী সংগঠনের প্রতি পুলিশ সুপার নেত্রকোনা নিম্নলিখিত বিষয়ে সহযোগিতা কামনা করেন।

উন্নয়নের পূর্বশর্ত হচ্ছে আইন শৃঙ্খলা। আইন-শৃঙ্খলা সুষ্ঠু স্বাভাবিক রাখার ক্ষেত্রে ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। বিশ্বায়নের এ যুগে স্বল্প খরচে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের মাধ্যমে নিজস্ব নিরাপত্তা বলয় তৈরি করা যায়।তাই প্রতিটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা সমীচীন।

আইন-শৃঙ্খলা সুষ্ঠু স্বাভাবিক রাখা তথা যানজট নিরসন পুলিশের প্রত্যক্ষ দায়িত্ব হলেও কতিপয় ক্ষেত্রে আইনের প্রতি অশ্রদ্ধাশীল ও অসচেতনতার কারণে ট্রাফিক যানজট সৃষ্টি হয়। তাই সকলকে আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ও সচেতন হওয়ার বিনীত আহবান।

মালামাল আনলোডের ক্ষেত্রে জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটি কর্তৃক নিরুপনকৃত সময় যথাযথভাবে অনুসরণ করা। অর্থাৎ রাত ০৮ ঘটিকা থেকে সকাল ০৮ ঘটিকার মধ্যে পণ্যবাহী ট্রাক বা যানবাহন থেকে মালামাল খালাস করা।

ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার নিমিত্তে জেলা পুলিশের সেবা গ্রহণের পাশাপাশি নিজস্ব নিরাপত্তা প্রহরী বা নাইট গার্ড নিয়োগের ব্যবস্থা গ্রহণ।

বৈশ্বিক মন্দা কাটিয়ে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী হওয়ার লক্ষে সরকার নির্ধারিত সময়ে অর্থাৎ রাত ০৮ ঘটিকার মধ্যে দোকানপাট বন্ধ করা (আওতা বহির্ভূত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ব্যতীত)।

কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির লক্ষ্যে সকল প্রকার পণ্যসামগ্রীর অবৈধ মজুদ না করা।

মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য সামগ্রী বিক্রয় না করা, পণ্যের গুণগত মান বজায় রাখা, সরকার নির্ধারিত মূল্যে পণ্য সামগ্রী বিক্রি করা, দৃশ্যমান স্থানে মূল্য তালিকা প্রদর্শন করা।

স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে চেম্বার অব কমার্সের নিজস্ব মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করন।

উপরিল্লিখিত বিষয়ে ব্যবসায়ী সংগঠন কর্তৃক জেলা পুলিশকে সহযোগিতার প্রত্যয় এবং মতবিনিময় সভা আয়োজন করায় পুলিশ সুপার ফয়েজ আহমেদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন ব্যবসায়ী সমাজ।

উক্ত মতবিনিময় সভায় চেম্বার অফ কমার্সের সভাপতি,পরিচালকমণ্ডলী, অন্যান্য পদমর্যাদার ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ সহকারী পুলিশ সুপার ফখরুজ্জামান জুয়েলসহ জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.