September 26, 2021

Shimanterahban24

Online News Paper

যানবাহনে নেই স্বাস্থ্যবিধি; দীর্ঘ ১৮মাস ছুটির পর খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

1 min read
ইউএনও তাহমিলুর রহমান

গোয়ইনঘাট প্রতিনিধি :: পরিচ্ছন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান,স্বাস্হ্যবিধি মেনে চলছে পাঠদান। শিক্ষক শিক্ষার্থী অভিভাবক সবারই মনে স্বস্হি ফিরেএলেও শঙ্কায় রয়েছেন যানবাহনে কোন রকমের স্বাস্থ্যবিধি না মানায়।

আর সংশ্লিষ্টরাও এ ব্যাপারে রয়েছেন উদাসীন।

 ১২সেপ্টেম্বর যেন শিক্ষার্থী  শিক্ষক অভিভাবকদের জন্য আলাদা আমেজ এনে দিয়েছে।দীর্ঘ  দেড় বৎসর পর আবার শিশুদের বিদ্যালয়ে পাঠাতে ব্যস্হ অভিভাবকরা।
সকাল ৯টা বাজতেই দীর্ঘ দিনের হারিয়ে ষাওয়া দূশ্য চোখে পড়ে। পিঠে স্কুল ব্যাগ ঝুলিয়ে শিশুরা কেউ হেটে কেউ  যানবাহনে করে স্ব স্ব বিদ্যালয়ের দিকের ওয়ানা দিয়েছেন,
কারো সাথে রয়েছেন অভিভাবকও। সকাল সাড়ে ৯ টায় পিরিজপুর  সঃপ্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায় বিদয়ালয়ের সকল শিক্ষক প্রথমেই শিশুদের  হাতধুয়ার পর শ্রেণী কক্ষে দিচ্ছেন,
সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে  বসিয়ে মাক্স পরিয়ে দিচ্ছেন। বিদয়ালয়ের পরিবেশ অত্যান্ত পরিচ্ছন্ন। ক্লাসে  শিক্ষার্থীদের প্রথমেই বুঝানো হচ্ছে স্বাস্হ্যসুরক্ষা বিষয়ে।পরে তাদেরকে সপ্তাহে কোন শ্রেণীর ক্লাস কোন কোন দিন হবে জানিয়ে দেয়া হয়।
প্রধান শিক্ষক জবা পাল,সহকারী শিক্ষক আনোয়ার হোসেন মামুনুর রশিদসহ সকল শিক্ষকই উপস্হিত থেকে সবার আগে পর্যবেক্ষন করছেন শিশুদের স্বাস্হবিধি, থার্মোমিটার দিয়ে পরীক্ষা করছেন শরীরের তাপমাত্রা।
অনেক অভিভাবকও ছেটে আসেন বিদয়ালয়ে, আসেন কমিটির  সভাপতিসহ সদস্যরাও।আনন্দঘন পরিবেশে  চলে পাঠদান। নিরব নিথর বিদ্যালয়গুলো আবারও মুখরিত হয়ে উঠে শিশু কিশোরদের মিলন মেলায়।
দুপুর ১২ টা ৪০মিনিটে গোয়াইনঘাট মডেল সরকারী উচ্চবিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায় চলছে স্বাস্থ্য বিধি মেনে পাঠদান।ইউ এনও তাহমিলুর রহমান ও ওসি পরিমল চন্দ্র দেব আকষ্মিক  বিদ্যায় পরিদর্শন করেন।
ইউএনও  শিক্ষার্থীদের  স্বাস্থ্যবিধি বিষয়ে দিক নির্দেশনা  দেন। সকল শিক্ষকই রয়েছেন উপস্হিত।গোয়াইনঘাট মডেল সঃ প্রাথমিক বিদয়ালয়ে গিয়ে দেখা যায় মনোরম,
পরিচ্ছন পরিবেশ  প্রতি বেঞ্চে একজন  শিক্ষার্থী, সামাজিক দূরত্ব  বজায় রেখে পাঠদান চলছে। বিদ্যলয়গুলোর এমন পরিবেশে অভিভাবকরাও সন্তুষ্ট তবে এমন পরিবেশে সবদিন যেন থাকে সেই প্রত্যাশা তাদের।
এ দিকে গেয়াইনঘাটে  যানবাহনে করে প্রতিদিনই যেতে হয় শতশত শিক্ষার্থীদের, যেখানে মানা হয় না স্বাস্হ্যবিধি। অতিরিক্ত  যাত্রী বহন করে মিশুক,অটোবাইক,সিএনজি।
কোন চালকই মাক্স ব্যবহার করেন না, তোয়াক্কা করেন না বিধিবিধানের। সংশ্লিষ্টরাও এ ব্যাপারে আন্তরিক হবেন প্রত্যশা সচেতন মহলের।
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.