September 26, 2021

Shimanterahban24

Online News Paper

ইয়াবা কারবারি বাদশা ধরাছোঁয়ার বাইরে

1 min read
ইয়াবা কারবারি বাদশা

নিজস্ব প্রতিবেদক :: কক্সবাজার সদর উপজেলার খরুলিয়া নয়াপাড়া এলাকার রিকসা চালক আব্দুল খালেকের এর ছেলে বাদশা কে কক্সবাজার সদর উপজেলাস্থ খরুলিয়ার ইয়াবারর জনক বলা হয়।

নিজ এলাকা খরুলিয়াতে গড়ে তুলেছেন ইয়াবার বিশাল সাম্রাজ্য। রাজধানী ঢাকা ও রোহিঙ্গা ক্যাম্পেই তার অধিপত্য বেশি।

লোকমুখে শোনা যায় তার কারবারে যদি কেউ বাধা সৃষ্টি করে তাকে জিবন দিতে হয়। বিগত দিনের ঘটনা গুলো জানান দেয় কেমন অধিপত্য তার,

দুই দুটি হত্যকান্ডে ও তপ্রতভাবে জড়িত থাকার পরও অদৃশ্য ক্ষমতায় সমাজে সাধু বিবেচিত হয়ে আছে বাদশা। দুই মাস আগে জামাল নামে আরেক ইয়াবা

কারবারিকে হত্যা করে তার ব্যবসাকে গতিশীল করে। তবে ২০১৮ সালে দেশব্যাপী আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর মাদক বিরোধী অভিযান শুরু হলে আলোচনায় উঠে আসে তার নাম।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় এর যে শীর্ষ ইয়াবা কারবারির তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে সেখানে রয়েছে বাদশার নাম।

তখন আকস্মিক ভাবে পালিয়ে যায় সৌদিয়া আরবে।তীক্ষ্ণ বুদ্ধি সম্পন্ন ইয়াবা কারবারি বাদশা-সেখান থেকে বসেই সামাল দেয় তার অবৈধ সকল ব্যবসা।

কক্সবাজারে মেজর সিনহা হত্যাকান্ডের পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানে কিছুটা শিথিল হওয়ার পরপরই দেশে এসে বিভিন্ন জেলার

এজেন্টদের সক্রিয় করে পুরোদমে চালাচ্ছেন ইয়াবার ব‍্যবসা ।

এই মাদক চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে দেশর আনাচে কানাচে ইয়াবা গাজা ফেন্সিডিল ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে।

চক্রটি প্রধান বাদশা পার্শ্ববর্তী দেশ মিয়ানমারে আত্মীয় স্বজন থাকার সুবাদে মিয়ানমার থেকে সহজেই নিয়ে আসা ইয়াবা আকাশপথে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে সরবরাহ করেন।

অনুসন্ধানে জানা যায় কিছুদিন আগে মরিচ্যা চেকপোষ্ট এলাকায় বড় ধরনের একটি ইয়াবার চালান আটক হয়েছিল সেটি তাহার চালান ছিল,।

মিয়ানমারে কিছু লোক তাহার আত্মীয় হওয়ার কারণে সেখান থেকে ইয়াবা ও স্বর্ণ পেতে তার কষ্ট হয়না। নাম প্রকাশ না করার শর্তে বেশ কয়েকজন জানান ঝিলংজা

ইউনিয়ন কে প্রথম ইয়াবার স্বর্গরাজ্যে পরিনত করার নেপথ্যে এই বাদশা। তিনি সুকৌশলী একজন ব্যাক্তি সব সময়, প্রশাসনের ধরা ছোঁয়ার বাহিরে থেকে যায় সে।

একজন জনপ্রতিনিধির ভাষ্যমতে এখন সে নিজ গ্রামে বসে চালিয়ে যাচ্ছে ইয়াবা ও চোরাকারবার, তাকে গ্রেফতার করলে, ইয়াবার গোডাউন এবং কারখানার খবর পেয়ে যাবে প্রশাসন।

তার অবৈধ টাকায় কিছুদিন আগে খরুলিয়াতে চট্টগ্রাম কক্সবাজার মহাসড়কের পাশে ৫০ লক্ষ টাকা দামে একটি জায়গা ক্রয় করেন।

খরুলিয়া এলাকার সাধারন মানু্ষ মনে করে তার বিরুদ্ধে যদি দুদক অভিযান শুরু করে তার অবৈধভাবে অর্জিত সব সম্পদ বের হয়ে আসবে।

সংবাদের বিষয়ে তাহার মুঠো ফোনে যোগাযোগ এর চেষ্টা করা হলে মোবাইল সংযোগ পাওয়া যায়নি।

ইয়াবা কারবারি বাদশা

সীমান্তের আহ্বান / বাদশা

পড়ুন…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copyright © All rights reserved. | Newsphere by AF themes.