Main Menu

নেপালি সীমান্ত পুলিশের গুলিতে ভারতীয় নিহত, গুলিবিদ্ধ দুই

সীমান্তের খবর/আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: নেপাল সীমান্ত পুলিশের গুলিতে এক ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে। বিহারের সীতামারী সংলগ্ন ইন্দো-নেপাল সীমান্তের ওপারে হওয়া এই ঘটনায় আহত হয়েছে আরও দুজন।
এনডিটিভিতে প্রকাশিত খবরে জানা গেছে, গুলিবিদ্ধদের সীতামারীর এক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এসএসবি’র ডিজি সংবাদসংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছে, শুক্রবার সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে এই ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া লগন যাদব নামে এক ভারতীয়কে গ্রেপ্তার করেছে নেপাল পুলিশ। এসএসবি’র পাটনা ফ্রন্টিয়ারের আইজি সঞ্জয় কুমার বলেছেন, ‘আমাদের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়েছে। পরিস্থিতি আপাতত নিয়ন্ত্রণে। স্থানীয় এবং নেপাল সশস্ত্র বাহিনীর এই সংঘর্ষে একজন মারা গেছেন এবং দুজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।’
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিকাশ যাদব নামের ২২ বছরের নিহত যুবকের পেটে গুলি লেগেছিল। আহত উমেশ রাম আর উদয় ঠাকুরকে সীতামারীর বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, নেপাল ভূখণ্ডে থাকা লগন যাদবের পুত্রবধূ কয়েকজন ভারতীয় নাগরিককে নিয়ে গল্পগুজব করছিলেন। এতে আপত্তি তোলে নেপাল সীমান্ত পুলিশ। ভারত-নেপাল সীমান্তে কোনও কাঁটাতার নেই। ফলে প্রায় এপার-ওপার যাতায়াত প্রায়ই হয়। পারিবারিক সম্পর্ক গড়ে ওঠে দুই দেশের মানুষের মধ্যে। কিন্তু এদিন এই গল্পগুজবের পরিবেশে আপত্তি তোলে নেপাল সীমান্ত পুলিশ। শুরু হয় দু’পক্ষের বিতণ্ডা। এর জেরে সীমান্তে জড়ো হয় প্রায় ৭৫-৮০ জন ভারতীয়।
নেপাল পুলিশ সূত্রে খবর, তারা প্রথমে ফাকা গুলি ছুঁড়ে সতর্ক করে। এতে পরিস্থিতি আরও জটিল হয়। বাহিনীর বন্দুক ছিনিয়ে নেওয়া হতে পারে এই আশঙ্কায় উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে গুলি চালায় তারা। তাতেই একজনের মৃত্যু হয়েছে। বাকি দু’জন চিকিৎসাধীন।

এদিকে সীমান্ত সমস্যা নিয়ে উত্তেজনা বেড়েছিল ভারত-নেপাল সম্পর্কে। ভারতের দাবি করা ভূখণ্ডকে নিজেদের মানচিত্রে জায়গা দিতে  সংবিধানে সংশোধনী এনেছে নেপাল সরকার। এই ঘটনাকে অপ্রত্যাশিত ও বাস্তব বর্জিত বলে কটাক্ষ করেছে ভারত।





Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *