Main Menu

ঝুঁকি নেবে না বিসিবি

[শ্রীলঙ্কা সফর নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে এশিয়া কাপ ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে এসিসি ও আইসিসির অবস্থান জানতে চায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।]

ক্রীড়া ডেস্ক :: জুলাইয়ে বাংলাদেশ দলের শ্রীলঙ্কা সফর নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হওয়ার কথা চলতি সপ্তাহে। এ নিয়ে খেলোয়াড় এবং টিম ম্যানেজমেন্ট সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা চলছে বোর্ডের। সিদ্ধান্ত শেষ পর্যন্ত যা–ই আসুক, করোনাভাইরাসের মধ্যে কোনো ধরনের ঝুঁকি নিয়ে সফরটি করতে চায় না বিসিবি।

বিসিবির নীতিনির্ধারকদের মধ্যে জুলাইয়ের শ্রীলঙ্কা সফর নিয়ে দুই রকম ভাবনাই কাজ করছে। শ্রীলঙ্কার করোনা–পরিস্থিতি সফরের পক্ষে যুক্তি দিলেও সেটি টিকছে না বাংলাদেশের করোনা–পরিস্থিতির কারণে। প্রতিদিনই বাড়ছে সংক্রমণ আর মৃত্যুর সংখ্যা। বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান কাল প্রথম আলোকে বলেছেন, ‘আমরা পরিস্থিতি বোঝার চেষ্টা করছি, অপেক্ষা করছি। দেশের করোনা–পরিস্থিতি ভালো না হলে কিছু করার নেই। আমরা কোনো ঝুঁকি নেব না।’

বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন চৌধুরী অবশ্য এখনই সফরের সম্ভাবনা বাতিল করে দিচ্ছেন না, ‘শ্রীলঙ্কা সফরের নেতিবাচক ও ইতিবাচক দুটি দিকই আছে। এ কারণে আমরা একটু সময় নিচ্ছি। নিজেদের মধ্যে আলোচনা চলছে। টিম ম্যানেজমেন্ট, ফিজিও, ট্রেনার ও খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা হচ্ছে।’

করোনাভাইরাসের কারণে চাইলে চট করেই ‘না’ বলে দেওয়া যায় এসএলসিকে। কিন্তু বলা যাচ্ছে না ভবিষ্যতের কথা ভেবেই। সফরটা টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ। একবার স্থগিত হলে সেটি আবার কবে হবে, তা অনিশ্চিত। গত তিন বছরে শ্রীলঙ্কার মাটিতে নিজেদের রেকর্ডও অনুপ্রাণিত করছে বাংলাদেশকে। তা ছাড়া করোনা–পরবর্তী ‘নিউ নরমাল’ বা নতুন স্বাভাবিকতায় ফিরতে কোথাও না কোথাও তো খেলা শুরু করতেই হবে। সব মিলিয়ে সেই শুরুর জন্য বিসিবির কাছে গুরুত্ব পেতে পারে শ্রীলঙ্কা সফরই।

বিসিবির প্রধান নির্বাহী জানিয়েছেন, সফরটি নিয়ে এরই মধ্যে তাঁরা দলের প্রধান কোচ, ফিজিও, ট্রেনারদের সঙ্গে ভার্চ্যুয়াল সভা করছেন। খেলোয়াড়দের সঙ্গেও নিয়মিত কথা বলছেন, তাঁদের মতামত জানছেন। আজ এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) সভা আছে, পরশু হবে করোনা–পরবর্তী ক্রিকেট নিয়ে আইসিসির গুরুত্বপূর্ণ সভা। এই দুই সভায় নির্ধারণ হতে পারে এশিয়া কাপ ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ভাগ্য। আইসিসি ও এসিসির সিদ্ধান্ত জেনেই শ্রীলঙ্কা সফরের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে বিসিবি। নিজাম উদ্দিন চৌধুরী বলছিলেন, ‘ওদের (এসএলসি) সিইওর সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। কাল (আজ) এসিসির মিটিং, ১০ তারিখে আইসিসির মিটিং। এরপর আমরা একটা সিদ্ধান্তে আসব।’

বিসিবি সিদ্ধান্ত জানাতে সময় নিলেও শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের (এসএলসি) হাতে অত সময় নেই। দেশটির করোনার সংক্রমণ যেহেতু অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে, যত দ্রুত সম্ভব মাঠে খেলা নামাতে চায় তারা। বাংলাদেশ শেষ পর্যন্ত না গেলে এসএলসি ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট শ্রীলঙ্কা প্রিমিয়ার লিগ (এসএলপিএল) আয়োজন করতে আগ্রহী। দুই দিন আগে স্থানীয় এক পত্রিকাকে বোর্ডের সেক্রেটারি মোহন ডি সিলভা বলেছেন, ‘বাংলাদেশ সিরিজ যদি না হয়, আমাদের অক্টোবর-নভেম্বরে হতে যাওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে মনোযোগী হতে হবে। কারণ, ওটাই আমাদের পরবর্তী সিরিজ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবে আমরা এসএলপিএল আয়োজন করতে চাই।’






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *