Main Menu

জগন্নাথপুরে বর্তমান চেয়ারম্যানকে হাসানের হুমকি; ঘটতে পারে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা

অতিথি প্রতিবেদক ,জগন্নাথপুর।।

জগন্নাথপুর উপজেলার সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল হাসানের হাতে, অত্র ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান তৈয়ব কামালি লাঞ্ছিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।শুধু লাঞ্চিত নয় তাকে কয়েক ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখেন অভিযুক্ত হাসান বাহিনীর প্রধান (আবুল হাসান)।এবং ভবিষ্যতে সৈয়দপুর বাজারে এলে হাত পা ভেঙে ফেলার হুমকির প্রদানের অভিযোগ করেছেন তৈয়ব কামালি।

(২৩ মার্চ) রাত সাড়ে ৮ টায় সৈয়দপুর বাজারে মুসলিম সুইট দোকানে আবুল হাসান তার সন্ত্রাসী বাহিনীদের সাথে নিয়ে লাঞ্চিত ও হুমকি প্রদান করেন তৈয়ব কামালি কে।

হাসান বাহিনী গ্রুপের নেতাদের দাবি,লাঞ্চিত নয় বরং তৈয়ব কামালির নিরাপত্তার জন্য সৈয়দপুর বাজার থেকে চলে যেতে বলা হয়েছে ।

লাঞ্চিত চেয়ারম্যান তৈয়ব কামালি কান্নাজড়িত কন্ঠে সাংবাদিকদের জানান, আমি জানিনা কি অপরাধে আমাকে বার বার বিভিন্নভাবে নির্যাতন করে যাচ্ছেন আবুল হাসান। ২৩ মার্চ আমি আমার পরিষদের সদস্যদের সাথে করোনা ভাইরাস নিয়ে সচেতনা মূলক আলোচনা সভা করে সৈয়দপুর বাজারে গেলে আবুল হাসান তার সন্ত্রাসী বাহিনী আমার উপর হামলার চেষ্টা করলে আমাদের আর্তচিৎকার শোনে বাজারের অন্যান্য মানুষ এসে আমাদেরকে উদ্ধার করে।

প্রতিবেদনের সাথে আলাপকালে তৈয়ব কামালি বলেন আমি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন সময় আমার উপর হামলার চেষ্টা করা হয়েছে। আমার উপর মামলা দিয়ে হেনস্তা করার চেষ্টা করা হয়েছে। সবকিছুতে ব্যার্থ হয়ে আবুল হাসান তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে নিজে মাঠে নেমেছেন আমাকে ঘায়েল করার জন্য।তিনি বলেন এই হাসান বাহিনীর প্রধান আবুল হাসান সহ তার বাহিনীর বিরুদ্ধে একাধিক জিডি জগন্নাথপুর থানায় থাকলেও একটি জিডির প্রশিউকিশন করেনি জগন্নাথপুর থানা পুলিশ।

তিনি আরও বলেন সম্প্রতি হাসান বাহিনীর শীর্ষ সন্ত্রাসী সাঈদুল, জুম্মান,নাঈম সহ অনেকেই আমার ঘনিষ্টজন সাংবাদিক মুন্নাকে প্রাননাশের হুমকির কারনে সিলেটে ও সুনামগঞ্জ আদালতে মামলা করেন মুন্না। মামলার তদন্তে সত্যতা পাওয়ায় কর্তব্যরত কর্মকর্তারা আইনিপদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানিয়েছেন।আমার উপর ও মিথ্যা বানোয়াট মামলায় হেনস্তা করার চেষ্টা হয়েছিল,যা কিছুদিন আগে তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই লুতফুর ফাইনাল রিপোর্টে মিথ্যা প্রমাণ পেয়ে উল্টো বাদীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন।

লাঞ্চিতের ঘটনা আমি সুনামগঞ্জ এসপি বরাবর অলিখিতভাবে অভিযোগ দিয়েছি।তিনি জগন্নাথপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি করার পরামর্শ দিয়েছেন। এবং হাসান বাহিনীর উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা করবেন বলে আমাকে আশ্বস্ত করেছেন।

এদিকে ইউনিয়নের স্বনামধন্য চেয়ারম্যান তৈয়ব কামালিকে এই ন্যাক্কারজনক লাঞ্চিতের ঘটনায় গোটা এলাকার নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় ওঠেছে। সর্বশেষ খবর নিয়ে জানা যায় এ ঘটনায় জগন্নাথপুর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *