Main Menu

আমার মৃত্যুই হবে আমার কিয়ামত

[এইচ এম জিয়াউর রহমান]

প্রতিদিন কত মানুষ মরছে।কাগজে প্রতিনিয়ত কত মৃত্যুর সংবাদ ছাপা হচ্ছে।
প্রতিদিন কত লাশকে সাদা কাফন পরিয়ে দাফন করা হচ্ছে।কারো কারো লাশ আবার আগুনেও পুড়ানো হচ্ছে।এছাড়াও কতশত মৃত্যুর সংবাদ গোপনও রয়ে যাচ্ছে।
জলে,স্থলে প্রতিনিয়ত কত মানুষ কতরকমের মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করছে।
ক্ষণিকের এই বসুন্ধরা-দুনিয়াদারী দুনিয়ার মায়া ত্যাগ করতে হচ্ছে।
কোন ধর্ম কিংবা বর্ণ পরিসরে নয়,বরং সকল ধর্ম,বর্ণের মানুষকেই মরতে হচ্ছে।
প্রত্যক্ষ করলে দেখা যায়!
মৃত্যু এটা কোন এক শ্রেণির জন্যও অবধারিত নয়,বরং প্রত্যক শ্রেণীর জন্য অবধারিত।
মৃত্যুর এই মিছিলে…..!
নবজাতক থেকে শুরু করে শিশু-কিশোর,প্রাপ্ত বয়স্ক,নারী পুরুষ,আবালবৃদ্ধবনিতা সকলকেই অংশগ্রহণ করতে হচ্ছে।

আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআন মাজিদে ইরশাদ করে বলেন-(“কুল্লু নাফসীন জা-ইক্বাতুল মাউত”)
-প্রত্যেক প্রাণী মৃত্যুর স্বাদ আস্বাদন করবে।

আজ যারা মরছে…….!!
তাঁরা হয়তো আমাদের জীবিতদের কারো মাতা-পিতা,সন্তান-সন্ততি,অথবা ভাই-বোন নতুবা আত্মীয়-স্বজনদের কেউ হবে।এককথায় তারা আমাদের কারোও না কারো কিছু হবে।জীবদ্দশায় তাদের প্রতি আমাদের এবং আমাদের প্রতি তাদের কতই না মায়া,মমতা স্নেহ ভালোবাসা ছিল।আজ আর কোন কিছুই স্থায়ী রইলো না।
দুর্ঘটনা,রোগাক্রান্ত,সন্ত্রাস,ঘাতক,জিহাদ,সীমান্ত রক্ষীর গুলি,ধর্ষকের কালো থাবড়া,জালিমের জুলুম অথবা অন্য কোন বাহ্যিক কারণেই তাদেরকে মরতে হয়েছে/হচ্ছে।

-এই দুনিয়ার মায়াজালে
হচ্ছ কেন না-শ?
-জানো তুমি,তোমায় একদিন
হতে হবে লাশ!!

মৃতু কোন অবস্থায় হবে এটা গুরুত্বপূর্ণ।
রাসুল সালাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন–
“প্রত্যেক বান্দা কিয়ামতের দিন ঐ অবস্হায় পুনরুত্থিত হবে,যে অবস্হায় সে মৃত্যু বরণ করেছে”।

আমাদেরকেও একদিন মরতে হবে।মৃত্যুকে আমরা কেউ অস্বীকার কেউ করতে পারবো?অবশ্যই না।
-কোথায়?
-কখন?
-কিভাবে?
আমার মৃত্যু আসবে আমরা কেউ জানিনা।অতীতে যারা মৃত্যু বরণ করেছে এরাও জানতো না।আগামীকাল যারা মরবে তারাও জানেনা।মৃত্যু এটা কিয়ামতের মতই।কিয়ামত কখন সংঘটিত হবে?এটা যেমন আল্লাহ তায়ালা ব্যতীত কারোও জানা নেই।ঠিক তেমনিভাবে মৃত্যুও কোথায়,কখন কিভাবে আসবে কেউ জানেনা।আর যার মৃত্যু যখন আসবে তখনই তার কিয়ামত শুরু হবে।বলা হয়েছে’তোমার মৃতুতেই তোমার কিয়ামতের সূচনা হবে।

শেষকথা-
প্রবৃত্তির লোভ-লালসা ও খেল-তামাশায় মত্ত হয়ে আমরা অধিকাংশরাই চিরসত্য মৃত্যুকে ভুলে যাই।বাচার তৃষ্ণা অনেক সময় আমাদের ঈমানকে দুর্বল করে দেয়।আমরা ভুলে যাই আমরা মরণশীল। আমারা ভুলে যাই ‘আমার মৃত্যুই হবে আমার কিয়ামত’।

আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে সর্বপ্রকার দুনিয়াবি ফিতনা-ফাসাদ থেকে রক্ষা করুক।
আমাদের সবাইকে পরিপূর্ণ ঈমানের সাথে মৃত্যু দান করুক। মৃতুর আগে মৃত্যুুর সামান জোগান দেওয়ার তাওফিক দান করুক।
আমিন!






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *