Main Menu

দিল্লির মসজিদে আগুন; কী বললেন জননেতা শাহীনূর পাশা?

সীমান্ত ডেস্ক :: ভারতের রাজধানী দিল্লির বিভিন্ন স্থানে মুসলিম বিরোধী নাগরিকত্ব আইন সিএএর প্রতিবাদে আন্দোলনকারী ও দেশটির উগ্র হিন্দুত্ববাদী বিজেপিসহ বিরোধীদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ এখনও থামেনি। ফলে সেখানকার পরিস্থিতি রণক্ষেত্রে রূপ নিয়েছে। এর মধ্যেই দিল্লির একটি মসজিদে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটিয়েছে হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসীরা।
বিক্ষোভ-সহিংসতায় এখন পর্যন্ত ১৩ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। ভারতীয় একটি ওয়েবসাইটের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার একদল উন্মত্ত জনতা জয় শ্রী রাম বলতে বলতে অশক নগর এলাকার একটি মসজিদে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এই ঘটনার প্রেক্ষিতে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের সহ-সভাপতি ও সুনামগঞ্জ জেলা জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের সভাপতি এবং সিলেট দারুল কুরআন মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা ও প্রিন্সিপাল এডভোকেট মাওলানা শাহীনূর পাশা চৌধুরী তার গণমাধ্যমে তার ফেইসবুক টাইমলাইনে এক গুরুত্বপূর্ণ বিবৃতি দেন। এতে তিনি বলেন- পাপীয়া আর কচুরিপানা ইস্যু নিয়ে বসে থাকলে হবেনা, ইমানী দায়িত্বে কী করতে হবে, তা তার বিবৃতিতে দেখে নেই। নিম্নে হুবহু তার বিবৃতি তোলে ধরা হলো।

“উগ্র হিন্দুরা মোদীর শেলটারে নৃত্য করছে হিন্দুস্থানে। ঈমানদারের জোব্বা পরে পীর আওলিয়ার দেশে আমার সিংহাসন রক্ষায় আমি আপনি পাগলপারা।
আমার মাদরাসা আর খানকা সুরক্ষিত থাকলেই বাঁচি।
এই যদি হয় আমার মন মানসিকতা- তাহলে জাতির দিকপাল আলেম সমাজকে মাটির উপরে বেঁচে থাকার স্বার্থকতা দেখিনা।

দিল্লির মসজিদে আগুন দিয়েছে সন্ত্রাসী মোদী বাহিনী। মাইক ফেলে দিয়েছে মিনার থেকে।সেখানে টানিয়েছে গেরুয়া পতাকা! মিনার ভেঙে ফেলার চেষ্টাও করেছে!
শহীদ হয়েছেন গতরাতে কত শত; পঙ্গুত্ব বরণ করছে হাজারে হাজার। আমরা কি শুধুই দেখবো??

আমরা কি পাপিয়ার লিংক খুজতে ব্যাস্ত থাকবো। কচুরীপানা ইস্যু নিয়ে আমরাও ওদের মতো..!

হে যুবক, দিল্লির মসজিদের আগুন যদি তোমার অন্তরে উত্তাপ না ছড়ায়, যদি এ খবর শোনার সাথে সাথে তোমার কলিজায় দাউ দাউ করে আগুন জ্বলে না ওঠে, মুসলিম প্রধান দেশের সরকার হয়ে ভারতের ভয়ে দাও পিছুটান, তাহলে নিজেকে ঈমানদার বলে পরিচয় দেওয়ার আগে তুমি মুনাফিক কি না; তা ভেবে দেখো
আরেকবার।”






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *