Main Menu

গুনাহ ও ঋণ থেকে মুক্তির দোয়া

সীমান্তের আহ্বান :: মানুষের প্রয়োজন ও চাহিদার কমতি নেই। আর প্রয়োজনের তাগিদে মানুষ সব করে। চাহিদা পূরণে কেউ কমতি করে না। আল্লাহর কাছে নিজের প্রয়োজন ও চাহিদার কথা তুলে ধরলে আল্লাহ প্রয়োজন পূরণ করেন। চাহিদায় ঘাটতি থাকলে তা দূর করে দেন।

জীবনে চলার পথে অনেকেই বিভিন্ন সময় ঋণগ্রস্থ হয়ে পড়েন। কখনো কখনো সেই ঋণের পরিমাণ অনেক বড় হয়ে যায়। আর তখনই মানুষ অনেক সময় ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে। তখন আল্লাহ তায়ালার বিধান ভুলে অসৎউপায় অবলম্বন করেন।

মানুষ নিজের প্রয়োজন আল্লাহ তায়ালার কাছে চাওয়ার জন্য রাসুল সা. যেসব দোয়া শিখিয়ে গেছেন। তার মধ্যে কয়েকটি হলো-

উচ্চারণ: আল্লাহুম্মা ইন্নি আউজুবিকা মিনাল মা-ছামি, ওয়াল মাগরমি। অর্থ: ‘হে আল্লাহ! গুনাহ ও ঋণগ্রস্ততা থেকে আপনার নিকট আশ্রয় চাই।’

উপকার: উরওয়াহ ইবনে জুবায়ের রহ. থেকে বর্ণিত, রাসুল সা.-এর স্ত্রী আয়েশা রা. তাঁকে বলেছেন, রাসুল সা. নামাজে এই দোয়া করতেন। (বুখারি, হাদিস : ৮৩২)

উচ্চারণ: আল্লা-হুম্মা ইন্নী আ‘উযু বিকা মিনাল হাম্মি ওয়াল হাযানি, ওয়া আ‘ঊযু বিকা মিনাল-‘আজযি ওয়াল-কাসালি, ওয়া আ‘ঊযু বিকা মিনাল-বুখলি ওয়াল-জুবনি, ওয়া আ‘ঊযু বিকা মিন দ্বালা‘য়িদ্দাইনি ওয়া গালাবাতির রিজা-ল।

অর্থ: হে আল্লাহ! নিশ্চয় আমি আপনার আশ্রয় নিচ্ছি দুশ্চিন্তা ও দুঃখ থেকে, অপারগতা ও অলসতা থেকে, কৃপণতা ও ভীরুতা থেকে, ঋণের ভার ও মানুষদের দমন-পীড়ন থেকে।; (বুখারী, ৭/১৫৮, নং ২৮৯৩)।

উচ্চারণ: আল্লা-হুম্মাকফিনী বিহালা-লিকা ‘আন হারা-মিকা ওয়া আগনিনী বিফাদ্বলিকা ‘আম্মান সিওয়া-ক।

অর্থ: ‘হে আল্লাহ! আপনি আমাকে আপনার হালাল দ্বারা পরিতুষ্ট করে আপনার হারাম থেকে ফিরিয়ে রাখুন এবং আপনার অনুগ্রহ দ্বারা আপনি ছাড়া অন্য সকলের থেকে আমাকে অমুখাপেক্ষী করে দিন। (তিরমিযী ৫/৫৬০, ৩৫৬৩। আরো দেখুন, সহীহুত তিরমিযী, ৩/১৮০)।



« (Previous News)



Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *